জাপানের দৈত্যাকৃতি ‘ফসল বৃত্ত’, দেখলে মনে হয় যেন কিছুক্ষণ এগেই ইউএফও ল্যান্ডিং করেছে…

অর্ধ শতাব্দীর প্রচেষ্টায় জাপানে বৃক্ষের এক বৃত্ত সৃজন করা হয়েছে, এই শৈল্পিক সৃষ্টি দেখলে মনে হয় কিছুক্ষণ এগেই ইউএফও ল্যান্ডিং করেছে, বা কোথাও যেন এলিয়েনদের সাথে সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করা হচ্ছে।

অবিশ্বাস্য জ্যামিতিক আকারের পরিপক্ক জাপানি সিডার গাছ দিয়ে তৈরী। ১৯৭৩ সালে বিজ্ঞানীরা পরীক্ষামূলক বনাঞ্চল প্রকল্প শুরু করেছিলেন, মূলত গাছের দূরত্ত্ব ও বৃদ্ধির প্রভাবই এই গবেষণার কেন্দ্রবিন্দু ছিল।

মিয়াজাকি প্রিফেকচারের নিচিনান শহরের কাছে সিডারের বৃত্ত রোপণ করা হয়। ছোট অভ্যন্তরীণ বৃত্তগুলি ক্রমাগত বৃহদাকার ব্যাসার্ধে পরিণত হয়। অবতল আকৃতিটি স্পষ্ট করে যে, বৃত্তের ঘনত্ব যত বেড়েছে সিডার বৃক্ষগুলির আকৃতি তত ছোট হয়েছে। বৃত্তের বাইরের বৃক্ষগুলির আকৃতি তুলনামূলকভাবে ভেতরের গুলির থেকে আকারে অনেক বেশি বেড়েছে। সূর্যালোক ও জলের পরিমাণের কারণেও বৃত্তের বাইরের গাছগুলি অনেক বড় এবং শক্তিশালী হয়। জাপেনের কৃষি, বন এবং মৎস্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী বৃত্তটির কেন্দ্রের ক্ষুদ্রতম গাছ এবং বাইরের সর্বাধিক লম্বা গাছটির মধ্যে উচ্চতার পার্থক্য ৫ মিটারের বেশি।

দৈত্যাকৃতি এই ‘ফসল বৃত্তটি’ সংরক্ষণ করতে পারলে ভবিষ্যতে পর্যটকরাও আকর্ষিত হতে পারে। কিন্তু ফসল কাটার কারণে সম্ভাবনাময় এই গবেষণাটি বন্ধ করে দিতে হয়। গুগল ম্যাপে দেখলে মনে হয় কোন মাছ তার বড় বড় চোখ নিয়ে আপনার দিকে তাকিয়ে আছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.