একটাই শহর, একটাই পরিবার, একটাই পরিচয়- দালিয়া

অরোভিল, দক্ষিণ পূর্ব ভারতের এমন একটি শহরের গল্প, যেখানে কোনও আইন নেই, ধর্ম নেই, জাতি নেই। এখানে সকলের অবস্থান সমান, সবাই এক, পৃথক কোনও সত্তা নেই, বলা যায় একটাই শহর, একটাই পরিবার, একটাই পরিচয়। আপনার মাসিক আয় কত? যে কারুর দিকে এই প্রশ্নটা ছুঁড়ে দিন, উত্তরটা কিন্তু একই থাকবে,  ১২০০০ টাকা।

Pic auroville.org

১৯৬৮, ফ্রান্সের মহিলা মিরা আলফাসার উদ্যোগেই অরোভিল শহরটি গড়ে ওঠে, স্থানীয়দের কাছে যিনি ‘দ্য মাদার’ বলে পরিচিত। তিনি একজন আধ্যাত্মিক গুরুও ছিলেন। একটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, যেখানে শান্তি ও সম্প্রীতির বুননে সমস্ত দেশের মহিলা এবং পুরুষ একসাথে বসবাস করতে পারেন। ধর্ম, রাজনীতি এবং জাতিগত বিভেদের কোনও অবকাশ এখানে নেই।

২০ স্কোয়ার কিলোমিটার বিস্তৃত অরোভিল ৫টি গ্রামকে একত্রিত করে গড়ে উঠেছে। বর্তমানে এখানে ৫৭টি দেশের প্রায় ৩০০০ মানুষের বসবাস, যার এক তৃতীয়াংশ ভারতীয় এবং জনসংখ্যার নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে ফরাসিরা ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে জার্মানরা। এছাড়াও ইতালি, ডেনমার্ক সহ বিভিন্ন দেশের মানুষ রয়েছেন।

১০টি স্কুল থাকলেও প্রথাগত শিক্ষার থেকে বাস্তব শিক্ষার ওপর বেশি জোর দেওয়া হয়। পড়ুয়ারা নিজেদের পছন্দের বিষয় নিজেরাই ঠিক করতে পারে, কোনও বাধাধরা ছক এখানে নেই। রয়েছে মাতৃমন্দির  নামে প্রার্থনাস্থল, যেখানে ধুপের গন্ধ নেই, মোমবাতির শিখা নেই, ঘন্টার শব্দ নেই, নিরবতাই এখানে প্রার্থনার মূল মন্ত্র।

Pic auroville.org

“Let nothing short of Perfection be your ideal in work and you are sure to become a true instrument of the Divine.”- The Mother (Mirra Alfassa)

কল্পনা করি যদি সমগ্র বিশ্বটাই একটা অরোভিল হয়ে যায়, যেখানে কোনও জাতি, ধর্ম, বর্ণ অথবা কাঁটাতারের গণ্ডি নেই, সাম্যবাদের বুলি আওড়ানো ভেজাল ভাবনা নেই…পথের বাতাসে শুধুই হৃদয়ের গান-

“কতটা পথ পেরোলে পথিক বলা যায়

কতটা পথ পেরোলে পাখি জিড়োবে তার ডানা

কতটা অপচয়ের পর মানুষ চেনা যায়

প্রশ্নগুলো সহজ

আর উত্তরও তো জানা”

দালিয়া

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.