পৃথিবীর রহস্যময় কয়েকটি জায়গা…যেখানে নিউটনের মাধ্যাকর্ষণ শক্তি কাজ করে না…

১) মিস্ট্রি স্পট অব সান্টা ক্রুজ :- mystery-spot-pictures-03 ক্যালিফোর্নিয়ায় অবস্থিত এই জায়গাটি ১৯৩৯ সালে আবিষ্কৃত হয়। সেখানে যে বাড়িটি রয়েছে সেটির মেঝে থেকে দেওয়াল, যেকোনো সমতল স্থানে অনায়াসেই দাঁড়ানো যায়। বর্তমানে এটি পর্যটনের সবথেকে বড় আকর্ষণ।

২) ম্যাগনেটিক হিল :- ভারতে অবস্থিত লাদাখের চুম্বকীয় পাহাড়। ওপর থেকে নীচে নামার সময় যদি গাড়ির স্টার্ট বন্ধ হয়ে যায় তাহলে নিজে থেকেই সেটি ২০ থেকে ৩০ কিমি বেগে ওপরের দিকে উঠতে শুরু করে। আসলে এটি একটি দৃষ্টি বিভ্রম, নীচের দিকের রাস্তাটিকে ওপরের দিকে এবং ওপরের দিকে উঠে যাওয়া রাস্তাকে নীচের দিকে যাচ্ছে বলে মনে হয়।

৩) ইনভার্টেড ওয়াটারফল :- এখানে জলপ্রপাতটি নীচের দিকে না গিয়ে ওপরের দিকে বয়ে যায়। বিপরীত জলপ্রপাতের অপরূপ এই দৃশ্যটি দেখা যায় চিলিতে। বাস্তবে সেখানকার অতিদ্রুত বয়ে যাওয়া বাতাস জলকে ঠেলে ওপরের দিকে পাঠিয়ে দেয়। শুধু চিলি নয়, ভারতের পুণেতেও এই ধরনের জলপ্রপাত দেখা যায়।

৪) মাউন্ট এরাগেস্ট :- আর্মেনিয়ায় অবস্থিত পৃথিবীর আরও একটি বিস্ময়কর স্থান। এখানে গাড়িগুলি নিজে থেকেই ওপরে উঠে যায়। জল নীচের দিকে যাওয়ার বদলে ওপরের দিকে উঠে যায়। এখানে পাহাড়ে ওঠার সময় কষ্ট হয় না, বরং নীচের দিকে নামতে কষ্ট হয় যেটা সাইকেল আরোহীরা ভালো অনুভব করেন।

৫) হুভার ড্যাম :- আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বপ্রান্তে অবস্থিত । এটি আমেরিকার বৃহৎ বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রগুলির মধ্যে একটি। বিজ্ঞানীদের মতে এখানে একপ্রকার ম্যাগনেটিক ফিল্ড তৈরী হওয়ার কারণে মাধ্যাকর্ষন শক্তির প্রভাব কম।

You may also like...

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.