২০১৭-১৮ আর্থিক বছরে বিশ্ব শাসনে যে পাঁচটি কোম্পানী

১। অ্যাপলঃ- অ্যামাজন বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান ব্র্যান্ড হতে পারে, তবে সর্বাধিক প্রসার, প্রভাব এবং গ্রহণযোগ্যতার জন্য অ্যাপল ব্র্যান্ডফিনান্স গ্লোবাল 500 2018- এ AAA + ব্র্যান্ড রেটিং অর্জন করেছে । গত বছর এই মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থা যা ম্যাক, আইফোন এবং আইপ্যাড থেকে  ২২৯.২ বিলিয়ন ডলার (১৬৩ বিলিয়ন পাউন্ড )  এবং বিশ্বের প্রথম ট্রিলিয়ন ডলার কোম্পানির যোগ্যতা অর্জন করেছে।

২। অ্যামাজনঃ- সারা বিশ্বে কেনাকাটার দুনিয়ায় আমূল রূপান্তর করে ফেলেছে অ্যামাজন। অনলাইন খুচরা বিক্রেতা আমাজন গত কয়েক দশক ধরে উল্লেখযোগ্যভাবে তাদের ব্যবসা বাড়িয়ে চলেছে। এখন বিশ্বব্যাপী ১০০ টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে রয়েছে। ব্র্যান্ডফিনান্স গ্লোবাল 500 এর সর্বশেষ সমীক্ষায়, অ্যামাজন বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান ব্র্যান্ড। গত বছর, সিয়াটেল-ভিত্তিক এই সংস্থাটি ১৭৭.৯ বিলিয়ন ডলার ( ৮৩.৯ বিলিয়ন পাউন্ড) আয় করেছে।

৩। গুগলঃ- গুগলের সার্চ ইঞ্জিনটি বিশ্বকে জয় করেছে। জনপ্রিয়তা এবং প্রয়োজনের বিচারে ব্র্যান্ডটি আমাদের জীবনের অংশ হয়ে উঠেছে । পণ্য থেকে পরিষেবা, ক্লাউড স্টোরেজ থেকে সোশ্যাল মিডিয়া Google নামটি এখন বিসৃত পরিসরের সাথে সংযুক্ত। গুগলের মূল কোম্পানী আলফবেট ইনকর্পোরেটেড, যা ইউটিউব এবং জিগস (পূর্বে গুগল আইডিয়া হিসাবে পরিচিত)-কে অধিগ্রহণ করেছে  , গত বছর ১১০.৯ বিলিয়ন ডলার (৭৮.৯ বিলিয়ন পাউন্ড) অর্জন করেছে।

৪। স্যামসাংঃ- দক্ষিণ কোরিয়ার এই কোম্পানিটি ইলেক্ট্রনিক্স, জাহাজ এবং গাড়ি, সবকিছুতেই নিজেদের সাম্র্যাজ্য বিস্তার করেছে। গ্রুপটি থিম পার্ক পরিচালনা করে, বীমা প্রদান করে, এমনকি নিজস্ব একটি বিজ্ঞাপন সংস্থাও শুরু করেছে। স্যামসাং বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত একটি ব্র্যান্ড। গত বছর ৩০৫ বিলিয়ন ডলার (২১৭.৬ বিলিয়ন পাউন্ড) এর বিশাল রাজস্ব তারা ঘরে তুলেছে।

৫। ফেসবুকঃ- সম্প্রতি বেশ কয়েকটি ইস্যুতে ধারাবাহিকভাবে ধাক্কা খেয়েছে বিশ্বের সর্বাধিক জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়াটি। ভুল খবর সরবরাহ থেকে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা তথ্য কেলেঙ্কারিতে জর্জরিত হয়েছে সাইটটি । ২০১৭ সালের চতুর্থ ত্রৈমাসিক হিসাবে, ফেসবুকের ২.২ বিলিয়ন সক্রিয় ব্যবহারকারী  ছিল যা ক্রমবর্ধমান ছিল। সামাজিক নেটওয়ার্কিং হিমবাহটি গত বছর ৪০.৭ বিলিয়ন ডলার (২৯ বিলিয়ন পাউন্ড) অতিক্রম করেছিল।

You may also like...

Leave a Reply

%d bloggers like this: